মলনিয়া অরবিট – Molniya Orbit

Satellite কে চলাচল করার জন্য Molniya Orbit হচ্ছে বিশেষ ধরনের orbit. এটি অন্যান্য orbit এর চেয়ে কিছুটা আলাদা। এর আকার উপবৃত্তাকার বা elliptical. তবে এই orbit পৃথিবীর বিষুবরেখা কিংবা equator এর সাপেক্ষে 63.4 ডিগ্রি কোণ করে হেলে থাকে। 1960 সালের দিকে রাশিয়া সর্বপ্রথম এই ধরনের orbit ব্যবস্থা তৈরি করে satellite-কে চালানোর জন্য।

Molinya Orbit এর আকার উপবৃত্তাকার বলে পৃথিবীর সাপেক্ষে এই কক্ষপথে দুটো বিন্দু থাকে। পৃথিবী থেকে একদম কাছের বিন্দুটা হচ্ছে Perigee এবং পৃথিবী থেকে একদম দূরের বিন্দুটা হচ্ছে Apogee. Molniya Orbit এর গঠন কিছুটা inclined orbit এর মত। এই orbit এর অবস্থান এমন যে যখন কোনো satellite এই orbit দিয়ে চলাচল করে তখন সেটি একইসাথে পৃথিবীর equator (বিষুবীয় অঞ্চল) এবং polar (মেরু অঞ্চল) অংশকে কভার করতে পারে।

Molniya Orbit এর Apogee প্রান্তটা পৃথিবী থেকে প্রায় 40,000 km দূরে থাকে। এই orbit এর satellite দিয়ে প্রধানত Northern Hemisphere অঞ্চলকে যোগাযোগ ব্যবস্থায় আনা হয়। আমাদের পৃথিবীর চারপাশে তিনটা Molniya Orbit-কে ধরা হয়েছে। প্রতি orbit-এ একটা করে মোট তিনটা Molinya Satellite আমাদের পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে।

Molniya Orbit

একটা Molniya Satellite পৃথিবীর তিনভাগের এক ভাগ অংশকে ৮ ঘন্টা ধরে coverage দিতে পারে। ৮ ঘন্টা পর molniya orbit এর আরেকটা satellite সেই Area-কে coverage দেয়। এভাবে তিনটা molniya orbit এর তিনটা satellite সেই নির্দিষ্ট একভাগ অংশকে মোট 3 x 8 = 24 hour coverage দিতে পারে। এভাবে পুরো পৃথিবীর তিন ভাগের একভাগ অংশকে মাত্র তিনটা molniya satellite দিয়ে ২৪ ঘন্টা coverage করা যায়। এজন্য আমরা বলতে পারি তিনটা molniya satellite মিলে একটা geostationary satellite এর কাজ করতে পারে।

Geostationary Orbit এর মধ্যে satellite কে উঠাতে হলে যে শক্তি লাগে তার চেয়েও কম শক্তি লাগে একটা satellite-কে molniya orbit-এ পাঠানোর জন্য। তবে Molniya satellite গুলো প্রতিদিন প্রায় চারবার Van Allen Radiation Belt এর মধ্য দিয়ে যাতায়াত করে। সেজন্য Molniya satellite থেকে signal কে পাওয়ার জন্য earth station গুলোতে উন্নত মানের Antenna ব্যবহার করতে হয়।

Molniya Satellite এর ব্যবহার

  • Molinya Orbit এর satellite গুলোকে দিয়ে পৃথিবীর Polar region (মেরু অঞ্চল) কে coverage করা হয়।
  • মিলিটারিদের মাঝে প্রথম যোগাযোগ করার জন্য এই ধরনের satellite ব্যবহার করা হয়েছিলো।
  • এই satellite-এর apogee পয়েন্টটা বেশির ভাগ সময় আমেরিকার উপর থাকে বলে রাশিয়া খুব সহজেই আমেরিকার ভৌগলিক তথ্য জেনে ফেলতে পারে এই satellite.

ক্রাশ স্কুলের নোট গুলো পেতে চাইলে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে-

www.facebook.com/groups/mycrushschool

অতিথি লেখক হিসেবে আমাদেরকে আপনার লেখা পাঠাতে চাইলে মেইল করুন-

write@thecrushschool.com

Emtiaz Khan

A person who believes in simplicity. He encourages the people for smart education. He loves to write, design, teaching & research about unknown information.