ভোল্টেজের সিরিজ কানেকশন – Voltage in Series Connection

কোনো সার্কিটের যেকোনো দুটো পয়েন্টের মধ্যকার potential variation বা বিভবের ভিন্নতাকে voltage বলে। যখন কোনো সার্কিটের সাথে ব্যাটারিকে যুক্ত করা হয় তখন সেটা সার্কিটে electric energy সাপ্লাই করে এবং সার্কিটের শেষ দুই প্রান্তে potential difference তৈরি করে। যেমন যদি কোনো ব্যাটারি 2V এর হয় তবে সেটাকে একটা সার্কিটের সাথে কানেক্ট করালে সার্কিটের শেষ প্রান্তে 2V এর potential difference তৈরি হবে।

ভোল্টেজের সিরিজ কানেকশন

খেয়াল করো, উপরের সার্কিটে A এবং B টার্মিনালের মধ্যবর্তী potential difference হচ্ছে 2V. এর মানে হলো, A একটা positive terminal যার তুলনায় negative terminal B এর voltage 2V বেশি। সার্কিটে charge যখন positive terminal থেকে negative terminal এর দিকে যায় তখন এই সার্কিটে 2V এর voltage loss ঘটে। একে voltage drop বলে। একটা সার্কিটে voltage drop তখনি ঘটে যখন সার্কিটের মধ্য দিয়ে flow হওয়া charge অন্য কোনো energy তে (যেমন mechanical, heat, light, sound) কনভার্ট হয়ে যায়। অর্থাৎ একটা ব্যাটারিযুক্ত বা voltage source যুক্ত সার্কিটে কোনো load (যেমন লাইট, স্পিকার, ফ্যান) কানেক্ট করা হয় তবে সেই load এর মধ্য দিয়ে voltage drop ঘটবে।

একটা সার্কিটের কথা ধরো, যেখানে কয়েকটা resistor R1, R2, R3 সিরিজ কানেকশনে যুক্ত এবং তাদের সাথে একটা 2V এর ব্যাটারিও কানেক্ট করা। এই তিনটা resistor দিয়ে এখন 2V ব্যাটারির voltage drop ঘটবে।

ভোল্টেজের সিরিজ কানেকশন

তবে 2V এর কিছু অংশ করে করে R1, R2, R3 resistor এর মধ্যে voltage drop ঘটবে, শুধুমাত্র একটা resistor এর মধ্যেই টোটাল 2V voltage drop ঘটবে না। এখন R1, R2, R3 resistor এর মধ্যে টোটাল যে voltage drop ঘটবে তার পরিমানই হচ্ছে 2V. যদি ধরে নাও resistor তিনটি দিয়ে যথাক্রমে V1, V2, V3 পরিমান voltage drop হচ্ছে তাহলে এই drop গুলোর সমষ্টি হবে সার্কিটের supply voltage V বা 2V.
         V = V1 + V2 + V3
or, 2V = V1 + V2 + V3

তাহলে বলা যায়-

যদি কোনো সার্কিটে বিভিন্ন element গুলো series connection এ থাকে তবে প্রতিটা element এর টোটাল voltage drop হচ্ছে সার্কিটের source voltage এর সমান।

এখন সার্কিটে যদি একটা voltage source না থেকে অনেকগুলো voltage source থাকতো তবে তাদেরকে মাত্র একটা voltage source দিয়েই replace করা যেতো। এক্ষেত্রে টেকনিক হচ্ছে-

যদি দুটো voltage source এর polarity বা দিক একই হয় তবে তাদের সমতুল্য একটা voltage source এর মান হবে তাদের যোগফলের সমান। ছবিতে দেখো-

 কিন্তু voltage source যদি দুইয়ের বেশি থাকে তবে যেকোনো একটা source কে reference ধরে বাকি গুলোর polarity এর সাথে সেই reference source কে মেলাতে হবে। Reference voltage source এর সাথে যেসব voltage source এর polarity মিলবে তারা সবাই reference source এর সাথে যোগ হবে, যাদের polarity মিলবে না তারা বিয়োগ হবে।

AC Voltage Source is Series Connection
দুটি বা তার বেশি AC voltage source সার্কটের সাথে কানেক্ট করা থাকলে তাদের সমতুল্য voltage source বের করার নিয়ম দুটো DC source এর মত হয় না।

যদি দুটো AC voltage source এর angular velocity (কৌণিক বেগ) এর মান একই হয়, ধরলাম 9t, তবে তাদের peak value কে যোগ করে দিলেই তাদের সমতুল্য একটা AC voltage source এর মান পাওয়া যাবে-

যদি দুটো AC voltage source এর angular frequency (omega) এর মান ভিন্ন হয় তবে তাদের সমতুল্য voltage source হচ্ছে সেই দুটো AC voltage source এর আলাদা আলাদা যোগফল। ছবিতে দেখো-

 সবশেষে, যখন একটা DC voltage source এর সাথে AC voltage source কে সিরিজে কানেক্ট করা হয় তখন তাদের সমতুল্য voltage source পেতে হলে তাদের মানগুলোকেও সরাসরি যোগ করতে হয়। ছবিতে দেখো-

ক্রাশ স্কুলের নোট গুলো পেতে চাইলে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে-

www.facebook.com/groups/mycrushschool

অতিথি লেখক হিসেবে আমাদেরকে আপনার লেখা পাঠাতে চাইলে মেইল করুন-

write@thecrushschool.com

Crush School

Emtiaz Khan

A person who believes in simplicity. He encourages the people for smart education. He loves to write, design, teach & research about unknown information.